আলীকদম মারাইংতং পাহাড়ে বেড়াতে এসে মেডিকেল ছাত্রের মৃত্যু

16

॥ মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, লামা ॥
বান্দরবানের আলীকদম উপজেলার অন্যতম পর্যটন স্পট মারাইংতং পাহাড়ে বেড়াতে এসে ইফতেখারুল আহমেদ আবিদ (১৯) নামে এক পর্যটকের মৃত্যু হয়েছে। সে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজের ২য় বর্ষের ছাত্র। শনিবার (২২ জুন) রাত দেড়টায় আলীকদমের পর্যটন স্পট মারাইংতং পাহাড় থেকে লামা সরকারি হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।
নিহত ইফতেখারুল আহমেদ আবিদ টাঙ্গাইল জেলার কালিহাতী উপজেলার গান্ধীনা গ্রমের বাসিন্দা হেলাল উদ্দিনের ছেলে। তিনি বগুড়া শহীদ জিয়াউর মেডিকেল কলেজের ২য় বর্ষের ছাত্র বলে জানায় সফরসঙ্গী ও বন্ধু ওয়ালিদ খন্দকার।
ইফতেখারুল আহমেদ আবিদের বন্ধু ওয়ালিদ খন্দকার ও নাফিজ হাসান বলেন, ‘শুক্রবার সকাল ১০টায় তারা ঢাকা থেকে আলীকদম উপজেলার চৈক্ষ্যং আবাসিক এলাকায় পৌঁছান। সেখানে দুপুরে একটি ঝর্ণা ঘুরে এসে ইয়াছিন হোটেলে খাবার খেয়ে বিকেল ৫টায় মারাইংতং পাহাড়ের যাত্রা শুরু করে। অনেক বন্ধু মোটর সাইকেলে উঠলেও ইফতেখারুল আহমেদ আবিদ হেঁটে পাহাড় উঠেন। রাতে তার আরো দুই বন্ধু ওয়ালিদ খন্দকার ও নাফিজ হাসান সহ তিনজনে একটি তাবুতে খাকেন। রাত সাড়ে ১১ টার দিকে আবিদ হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ে। তার খিঁচুনি আসে। তখন সব বন্ধুরা মিলে মোটর সাইকেলে করে রাত ১টা ৩০ মিনিটে লামা সরকারি হাসপাতালে নেয়া হয়।
মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে লামা হাসপাতালের জরুরি বিভাগের দায়িত্বরত মেডিকেল অফিসার ডাঃ মোঃ জুনাইদ বলেন, ইফতেখারুল আহমেদ আবিদ কে রাত দেড়টায় আনা হয়। হাসপাতালে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে। রাত ৪টায় লামা থানার পুলিশ আবিদের লাশ থানায় নিয়ে যায়। কি কারণে তার মৃত্যু হয়েছে তা ময়নাতদন্ত রিপোর্ট আসলে বলা যাবে। তবে তার শরীরের কোথাও আঘাতের চিহ্ন ছিলনা।
লামা থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ শামীম শেখ পর্যটক মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘তার শ্বাস কষ্ট ছিলো বলে আমরা প্রাথমিকভাবে জানতে পেরেছি। এখন তার লাশ লাশবাহী এ্যাম্বুলেন্সে করে থানায় রাখা হয়েছে। তার পরিবারকে খবর দেয়া হয়েছে। তার বন্ধুরা সবাই আছে।’
তিনি আরো বলেন, ‘রোদের মধ্যে সারাদিন দুর্গম পাহাড়-ঝর্ণায় বেড়ানোর কারণে শরীর দুর্বল হয়ে অসুস্থ ও এক পর্যায়ে আবিদের মৃত্যু হয় বলে ধারণা করা হচ্ছে। পরিবারের লোকজন পৌঁছালে তার মরদেহ আইনি প্রক্রিয়া শেষে তাদের কাছে হস্তান্তর করা হবে।’