পর্যটকদের পদচারণায় মুখর রাঙ্গামাটির বিভিন্ন পর্যটন স্পট

54

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥
প্রকৃতির অপরূপ লীলাভূমি পাহাড়ি জনপদ রূপ বদলানো হ্রদ-পাহাড় আর মেঘ মিতালীর অপরূপ নান্দনিক দৃশ্য দেখার টানে রাঙ্গামাটিতে পর্যটকদের পদচারণায় মুখর হয়ে উঠেছে। টানা ছুটির অবসরে নগর জীবনের কোলাহল থেকে খানিকটা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলতে ভ্রমণপিপাসু পর্যটকরা ইটপাথরের শহর ছেড়ে হ্রদ-পাহাড়ের শহরে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ছুটে আসছে রাঙ্গামাটিতে।
পর্যটকদের জন্য মনোমুগ্ধকর কাপ্তাই হ্রদের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ছাড়াও পর্যটন কমপ্লেক্স এলাকায় হ্রদের ধারে দুই পাহাড়ের মাঝখানে স্থাপিত আকর্ষণীয় ঝুলন্ত সেতু, শুভলং ঝরনা, পুলিশ পলওয়েল পার্ক, ডিসি বাংলো, বার্গি লেক ভ্যালি, রাজবন বিহার, কাপ্তাই নিসর্গ পড হাউস, বাঘাইছড়ির সাজেক কিংবা আসামবস্তি-কাপ্তাই সড়কের অপরূপ সৌন্দর্য অবলোকন করতে আসছেন পর্যটকরা। এতে করে পর্যটন ব্যবসার সাথে জড়িতরাও অনেক খুশি। হোটেল-মোটেল ও সরকারি বিশ্রামাগারগুলোতে দেখা গেছে পর্যটকে ঠাঁসা। রাঙ্গামাটির দৃষ্টিনন্দন ঝুলন্ত সেতু, পলওয়েল পার্ক, ডিসি বাংলো এলাকায় পর্যটকদের উপস্থিতি অন্যান্য দিনের তুলনায় বহুগুণ বেড়ে গেছে। শহরের পর্যটন স্পটগুলো এখন পর্যটকদের পদচারণায় মুখর হয়ে উঠেছে। পর্যটকের আগমনে প্রতি দিনই রাঙ্গামাটির অর্থনীতিতে যোগ হচ্ছে কোটি টাকার রাজস্ব।
পর্যটকরা বলছেন, প্রকৃতির এমন রূপ দেখে তাদের তৃষ্ণা মিটে না। তাইতো ছুটি পেলে বার বার ছুটে আসেন মায়াবি রূপের এই শহরে। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে রাঙ্গামাটিতে বেড়াতে আসা পর্যটকরা জানিয়েছেন, প্রকৃতির রূপ কতো সুন্দর হয় সেটি রাঙ্গামাটিতে বেড়াতে না আসলে বুঝতে পারতাম না। দেশে এত সুন্দর জায়গা আছে এখানে না এলে জানতাম না। তাই মনকে সতেজ রাখতে পাহাড়ি জনপদে ছুটে এসেছি। খুব ভালো লাগছে রাঙ্গামাটি দৃর্শ্য। তবে রাঙ্গামাটির পর্যটনের উন্নয়নে এই শহরকে আরও বেশি ঢেলে সাজানো উচিত। তাহলে মানুষ বিদেশে বেড়াতে না গিয়ে এই শহরে বেড়াতে আসবে বলেও জানিয়েছেন পর্যটকরা।
রাঙ্গামাটি পর্যটন করপোরেশনের ব্যবস্থাপক আলোক বিকাশ চাকমা জানান, টানাছুটিতে রাঙ্গামাটিতে পর্যটকদের সংখ্যা বেড়েছে। কয়েকদিনে জেলায় আশানুরূপ পর্যটকের সমাগম হয়েছে মন্তব্য করে তিনি জানান, পর্যটন মোটেলগুলো শতভাগ বুকিং রয়েছে। খুব ভালো লাগছে পর্যটকদের উপস্থিতি বেড়ে যাওয়ায়। এই ভাবে যদি প্রতিদিন পর্যটকরা আসে তা হলে আমাদের লোকসানের কিছু অংশ পুরণ করতে পারবো।
এদিকে, রাঙ্গামাটিতে আগত পর্যটকদের সার্বিক নিরাপত্তায় তিন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন, ট্যুরিস্ট পুলিশ রাঙ্গামাটি রিজিয়নের দায়িত্বে থাকা পুলিশ সুপার মহিউল ইসলাম। তিনি বলেন, শহরকেন্দ্রিক পর্যটন স্পটগুলোতে পোশাকধারী পুলিশের নিয়মিত টহল ডিউটি, কাপ্তাই হ্রদের বোটের ঘাটগুলোতে স্ট্যার্ন্ডিং ডিউটিসহ এক স্পট থেকে আরেক স্পটে মোটরসাইকেল ডিউটি থাকবে।