পার্বত্য অঞ্চলের শিক্ষার মান বৃদ্ধিতে শিক্ষকদের পাশাপাশি অভিভাবকদেরকেও সচেতন হতে হবে-দীপংকর তালুকদার এমপি

51

লংগদু প্রতিনিধিঃ-পার্বত্য অঞ্চলের শিক্ষার মান বৃদ্ধিতে শিক্ষকদের পাশাপাশি অভিভাবকদেরকেও সচেতন হতে বলে জানিয়েছেন রাঙ্গামাটি সংসদ সদস্য ও খাদ্য মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি দীপংকর তালুকদার এমপি। তিনি বলেন, শুধু বড় বড় বিল্ডিং করলে হবে না। স্কুলের শিক্ষার মান বৃদ্ধি করে ভলো রেজাল্ট আনতে হবে। রাঙ্গামাটিতে মেডিকেল কলেজ ও বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয় স্থাপন করা হয়েছে। ভালো ছাত্র ছাত্রীরা লেখাপড়া করার সুযোগ পাবে বলে তিনি মন্তব্য করেন।
বুধবার (২২ মার্চ) দুপুরে মাইনীমুখ মডেল হাই স্কুলের নব-নির্মিত বিজ্ঞান ভবনের শুভ উদ্বোধন নবীন বরণ, মেধাবী শিক্ষার্থীদের পুরস্কার বিতরণ ও ২০২৩ সালের এস এস সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় ও দোয়া অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে দীপংকর তালুকদার এমপি এ কথা বলেন।
মাইনীমুখ মডেল হাই স্কুল পরিচালনা পরিষদের সভাপতি হাজী মো:ফয়েজু আজীমের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে লংগদু উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল বারেক সরকার, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আকিব ওসমান, উপজেলা ভাইচ চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ার বেগম, উপজেলা আওয়ালীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সেলিম উদ্দিন, রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য আছমা বেগম, লংগদু থানা ওসি (তদন্ত) মোঃ সানজিদ আহম্মেদ, উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক বাবুল দাশ বাবু, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রোফিকুন্নছো রোজী, প্রবীন সাংবাদিক এখলাস মিঞা খানসহ বিদ্যালয়ের শিক্ষক, অভিভাবক ও ছাত্র ছাত্রীরা উপস্থিত ছিলেন।
দীপংকর তালুকদার এমপি বলেন, পাহাড়ে শান্তি স্থাপনের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ৯৭সালে পার্বত্য শান্তি চুক্তি করেছে। শান্তিচুক্তির পর থেকে এ পর্যন্ত আওয়ামীলীগ সরকার সারা দেশের ন্যায় পাহাড়েও প্রচুর পরিমাণ উন্নয়ন করেছে যা অন্য কোন সরকার করতে পারেনাই।
তিনি আক্ষেপ করে বলেন, শান্তিচুক্তি সমালোচনাকারীরা শান্তিচুক্তি হলে পাহাড়ে থাকা যাবেনা, পাহাড়ে অশান্তি হবে, বাঙালীরা চলে যেতে হবে, শান্তি চুক্তি কালো চুক্তি এমন অনেক কথাই বলেছে। কিন্তু দেখা গেলো শান্তি চুক্তির ফলে পাহাড়ে ব্যাপক উন্নয়ন হচ্ছে। এছাড়াও রাঙ্গামাটিতে এপর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘর পেয়ে অনেক অসহায় মানুষ সাধারণ জীবনে ফিরতে পেরেছে।