বাংলাদেশ ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকল মানুষের নিরাপদ আবাস ভূমি-নিখিল কুমার চাকমা

20

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাঙ্গামাটিঃ-বাংলাদেশ ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকল মানুষের নিরাপদ আবাস ভূমি বলে মন্তব্য করেছেন পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিতে বিশ্বাসী বলেই দেশের প্রতিটি ধর্মের মানুষ তাদের নিজ নিজ ধর্ম শান্তি ও সম্প্রীতি মাধ্যমে পালন করে থাকে।
সোমবার (৩ অক্টোবর) রাঙ্গামাটি জেলার রাজস্থলী উপজেলার চন্দ্রঘোনা থানাধীন বাঙ্গালহালিয়া ইউনিয়নে দুইটি পূজা মন্ডপ পরিদর্শন রবিবার (২ অক্টোবর) সন্ধ্যায় হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গাপূজার মহা সপ্তমীতে রাঙ্গামাটির নানিয়ারচরের ঐতিহ্যবাহী পুরাতন মন্দির শ্রী শ্রী জগন্নাথ মন্দিরের পূজামন্ডপ পরিদর্শন, ধর্মীয় নেতা ও পুজারীদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন।
বাঙ্গালহালিয়া ইউনিয়নে দুইটি পূজা মন্ডপ পরিদর্শন এসময় উপস্থিত ছিলেন, সাবেক জেলা পরিষদের সদস্য স্মৃতিত বিকাশ ত্রিপুরা, চন্দ্রঘোনা থানার ওসি ইকবাল বাহার চৌধুরী, রাইখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মংক্য মারমা, বাঙ্গালহালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আদোমং মারমা, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক সুইচাপ্রু মারমা, ইউপি সদস্য শিমুল দাস, দক্ষিণেশ্বর কালী মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি অমর নাথ টিকলু, সহ-সভাপতি বিশ্বনাথ চৌধুরী, প্রিয়লাল দত্ত, মন্দির পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক লিটন দত্ত, প্রবীর দত্ত, বাঙ্গালহালিয়া বাজার শ্রী শ্রী দক্ষিণেশ্বর কালী মন্দিরের পূজা মান্ডপের সভাপতি অজয় দে, ছাগল খাইয়া শ্রী শ্রী কৃষ্ণ মন্দিরে পূজা মান্ডপের সভাপতি পাবেল কান্তি দে প্রমুখ।
অন্যদিকে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গাপূজার মহা সপ্তমীতে রাঙ্গামাটির নানিয়ারচরের ঐতিহ্যবাহী পুরাতন মন্দির শ্রী শ্রী জগন্নাথ মন্দিরের পূজামন্ডপ পরিদর্শনে এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান প্রগতি চাকমা, ইউএনও মো: ফজলুর রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান নুরজামাল হাওলাদার, উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আব্দুল ওহাব হাওলাদার, সাবেক উপজেলা সভাপতি ত্রিদীব কান্তি দাশ, বাবুল দাশ, নারায়ন শাহা, রিপন দাশ, প্রিয়তোষ দত্তসহ স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ।
পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে এই দেশ স্বাধীন হয়েছে সকল সম্প্রদায়ের মানুষের উন্নয়নের জন্য। তারে ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশকে একটি অসাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র উপহার দিতে নিরলস কাজ করে যাচ্ছে বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা। তারে অংশ হিসেবে দেশে বসবাসরত সকল সম্প্রদায়ের মানুষ উৎসব মুখর পরিবেশে যার যার ধর্ম পালন করতে পারছে।
তিনি আরো বলেন, আমরা পাহাড়ি বাঙ্গালী সবাই ভাই ভাই। স্ব-স্ব ধর্ম পালনে কোন বাধা নেই। যত সহযোগিতা দরকার আমরা দেব। পাহাড়ে প্রতি জাতি ধর্ম বর্ণ নির্বিঘ্নে একসঙ্গে মিলে মিশে কাজ করবে। এসময় তিনি বাঙ্গালহালিয়া ও নানিয়ারচর সকল সনাতন (হিন্দু) ধর্মাবলম্বীদের প্রতি উন্নয়ন বোর্ডের পক্ষ থেকে শারদীয় দূর্গা পূজার শুভেচ্ছা জানান এবং বাঙ্গালহালিয়া দুইটি পূজা মন্ডপ কমিটি ও জগন্নাথ মন্দির কমিটির সাথে সুবিধা ও অসুবিধা নিয়ে আলাপ আলোচনা করেন।