খাগড়াছড়িতে হাজারো মানুষের ভালোবাসায় সিক্ত হলো সাফজয়ী তিন কৃতি ফুটবলার

15

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধিঃ-হিমালয় জয় করে সাফ চ্যাম্পিয়ন হওয়া খাগড়াছড়ির তিন কৃতি ফুটবলার আনাই-আনুচিং-মনিকা ও নারী ফুটবল দলের সহকারী কোচ তৃষ্ণা চাকমাকে ছাদখোলা জিপ ও মোটর শোভাযাত্রায় বরণ করে নিয়েছেন পার্বত্য খাগড়াছড়িবাসী।
শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) সকাল ৯টার দিকে রাঙ্গামাটি থেকে সড়ক পথে খাগড়াছড়ির ঠাকুরছড়া পৌঁছালে নারী সংসদ সদস্য বাসন্তী চাকমা, সেনাবাহিনী ও খাগড়াছড়ি জেলা ক্রীড়া সংস্থার নেতারা তাদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেন। এসময় বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ সাফজয়ীদের ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত করে। এসময় হাজারো মানুষের ভালোবাসায় তিন কৃত্তিমান ফুটবলার আবেগ-আপ্লুত হয়ে পড়েন।
খাগড়াছড়ির ঠাকুরছড়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ফুল দিয়ে বরণ করার পর তাদের সুসজ্জিত একটি ছাদখোলা জিপে করে মোটরসাইকেল শোভাযাত্রাসহ খাগড়াছড়ির গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করানো হয়। পরে খাগড়াছড়ি স্টেডিয়ামে নেওয়া হয় তাদের। পরে ঐতিহাসিক খাগড়াছড়ি স্টেডিয়ামে খাগড়াছড়ি জেলা ক্রীড়া সংস্থার উদ্যোগে দেওয়া হয় সম্মাননা স্মারক।
সেখানে খাগড়াছড়ির অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. আবু সাঈদের সভাপতিত্বে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য বাসন্তী চাকমা।
এসময় খাগড়াছড়ির পুলিশ সুপার মো. নাইমুল হক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. আবু সাঈদ, খাগড়াছড়ি জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক জুয়েল চাকমা, খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শানে আলম, খাগড়াছড়ি জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ-সভাপতি মো. নুরুল আযম, পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য শতরূপা চাকমা ও জেলা মহিলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ফারজানা আযম, বাংলাদেশ ফুটবল দলের সহকারী কোচ তৃষ্ণা চাকমা ও কৃতি ফুটবলার মনিকা চাকমা প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
সংসদ সদস্য বাসন্তী চাকমা বলেন, জয়ের স্রোতে তোমরা গা ভাসিয়ে দিও না। বিভিন্ন জনপদে ছড়িয়ে থাকে ক্ষুদে ফুটবলারদের তুলে আনতে হবে। তৃষ্ণার মতো একদিন কোচের দায়িত্ব নিতে হবে। ছেলেমেয়ে বৈষম্য না করে সবাইকে সমান সুযোগ দিতে হবে। সুযোগ পেয়েছে বলেই দুর্গম জনপদে বেড়ে ওঠা আনাই-আনুচিং-মনিকারা খাগড়াছড়ির মুখ উজ্জ্বল করেছে।
খাগড়াছড়ি জেলা ক্রীড়া সংস্থার পক্ষ থেকে তাদের সম্মাননা ক্রেস্ট, টি-শার্ট এবং প্রত্যেকের হাতে একলাখ টাকার চেক প্রদান করা হয়।
এছাড়াও খাগড়াছড়ির তিন ফুটবল কন্যাকে ও এক কোচকে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস ৪ লাখ টাকা পুরস্কারের চেক হস্তান্তর করেন সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য বাসন্তী চাকমা।
গত (১৯ সেপ্টেম্বর) কাঠমুন্ডর দশরথ রঙ্গশালা স্টেডিয়ামে ফাইনালে স্বাগতিক নেপালকে ৩-১ গোলে হারিয়ে বাংলাদেশ লাল-সবুজের দল চ্যাম্পিয়ন হয়। এ সাফল্যে খাগড়াছড়ির তিন ফুটবল কন্যাকে ও এক কোচকে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস ওই রাতেই ৪ লাখ টাকা পুরস্কার ঘোষণা করেন।
উল্লেখ, খাগড়াছড়ির তারকা ফুটবলারদের নানা সমস্যা সমাধানে জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। তিনি আনাই-আনুচিং এবং মনিকা চাকমা’র বাড়ি সরেজমিন পরিদর্শন করে তাদের মা-বাবা স্বজন ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সাথে কথা বলে তাদের সমস্যা জেনেছেন। সরকারি অর্থায়নে জেলা প্রশাসনেরপ্রতিশ্রুতিতে মনিকা চাকমা’র বাড়ি নির্মাণ ও বিদ্যুতায়ন, আনাই-আনুচিংদের বাড়িতে গভীর নলকূপ স্থাপন ও বিদ্যুতায়ন করেছেন। সে সাথে জেলার তিন কৃতি ফুটবলারকে দুই লাখ টাকা করে সঞ্চয়পত্র করে দিয়েছেন।