কোটি টাকার সম্পদ বাঁচাতে বাঘাইছড়ি, লংগদু, নানিয়ারচর, বরকল, জুরাছড়িতে ফায়ার সার্ভিস স্থাপন জরুরী

23

আলহাজ্ব একেএম মকছুদ আহমেদঃ-মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, বঙ্গবন্ধুর তনায়া আপনার সমীপে আরজ করছি যে, রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলার বাঘাইছড়ি, লংগদু, নানিয়ারচর, জুরাছড়ি, বরকলসহ যে সব উপজেলায় ফায়ার সার্ভিস নেই ঐ সব জায়গায় কোটি কোটি টাকার সম্পদ রক্ষার জন্য জরুরী ভিত্তিতে ফায়ার সার্ভিস স্থাপন করা জরুরী। ঐ সব উপজেলাতে ফায়ার সার্ভিস না থাকার কারণে প্রতিবছর অগ্নিকান্ডে ঘরবাড়ি, দোকানপাট পুড়ে গিয়ে কোটি কোটি টাকার সম্পদ নষ্ট হচ্ছে।
অন্যদিকে জনগনকে কষ্ট করতে হচ্ছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে প্রশাসনকে হিমশিম খেতে হচ্ছে। সম্প্রতি বাঘাইছড়ি উপজেলার দুরছড়ি বাজারে অগ্নিকান্ডে ৬৯টি দোকান ও বসতবাড়ী ধ্বংস হয়েছে। ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ৫০কোটি টাকার উপর। উক্ত বাজারে প্রায় প্রতিবছর অগ্নিকান্ড ঘটে থাকে।
বাঘাইছড়ি, লংগদু, নানিয়ারচর, বরকল, জুরাছড়ি, বিলাইছড়ি ইত্যাদি উপজেলা হ্রদ এলাকায় অবস্থিত হওয়ার কারণে আগুন নিভাতে কষ্টের সম্মুখীন হতে হয়। তাই জরুরী ভিত্তিতে উক্ত উপজেলাগুলোতে ফায়ার সার্ভিস স্থাপন করা দরকার।
পূর্নাঙ্গ ফায়ার স্টেশন স্থাপনের পূর্বে উক্ত হ্রদ এলাকার উপজেলাগুলোতে রিভার ফায়ার স্টেশন স্থাপন করে আগুন নিভাতে সাহায্য করা যেতে পারে। রাঙ্গামাটি সদরে একটি রিভার ফায়ার স্টেশন স্থাপন করার চেষ্টা চলছে ১০/১৫ বছর। কিন্তু এখনও পর্যন্ত চুড়ান্ত করা হয়নি। অগ্নিকান্ডের ফলে রাঙ্গামাটি শহরেও কোটি কোটি টাকার সম্পদ নষ্ট হচ্ছে। লোকজন বাস্তুচ্যুত হয়ে মানবেতর দিনাতিপাত করতে বাধ্য হচ্ছে। সরকারী ভাবে যে সাহায্য দেয়া হয় তা পর্যাপ্ত নয়। ফলে দীর্ঘদিন যাবত দূর্ভোগ পোহাতে হয়। রাঙ্গামাটিতে রিভার ফায়ার স্টেশন দ্রুত স্থাপন করা দরকার।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, ১৯৯৭ সনে সরকার এবং পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির মধ্যে যে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে যাকে শান্তিচুক্তি আখ্যায়িত করা হয়। সে চুক্তির পর পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলে হাজার হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন হচ্ছে। যদি ও বা কিছু কিছু কম গুরুত্বপূর্ণ কাজে ব্যয় করা হয়ে থাকে। ঐসব কম গুরুত্বপূর্ণ কাজ গুলো বাদ দিয়ে জন গুরুত্ব ফায়ার স্টেশন এবং রিভার ফায়ার স্টেশন স্থাপন করা জরুরী।
উক্ত কাজ গুলো জরুরী ভিত্তিতে করা দরকার। ধীরগতি হলে হাজার হাজার কোটি টাকার সম্পদ নষ্ট হবে। জনগণ বাস্তুহারা হয়ে পড়বে। সরকারের অতিরিক্ত ব্যয় হবে।
পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের বাজেটে বরাদ্দ না থাকলে, দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রনালয় থেকে অথবা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ তহবিল থেকে বিশেষ বরাদ্দ দিয়ে হলেও জরুরী ভিত্তিতে ফায়ার স্টেশন ও রিভার ফায়ার স্টেশন স্থাপন করে সম্পদ রক্ষার ব্যবস্থা নেয়া হোক।