কাজের প্রতি সদিচ্ছা এবং নিষ্ঠা থাকলে যেকোন কাজে সফল হওয়া যায়-অংসুই প্রু চৌধুরী

26

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাঙ্গামাটিঃ-রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ এর মাসিক সভা সোমবার (১৮ মে) সকালে পরিষদের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় সভাপতিত্ব করেন রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অংসুই প্রু চৌধুরী।
সভাপতির বক্তব্যে চেয়ারম্যান বলেন, কোভিড চলাকালীন সময়ে স্বাস্থ্য বিভাগ বিচক্ষণতার সঙ্গে কাজ করায় রাঙ্গামাটি জেলার মৃত্যুহার এবং ক্ষয়ক্ষতি উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস করা সম্ভব হয়েছে। কাজের প্রতি সদিচ্ছা এবং নিষ্ঠা থাকলে যেকোন কাজে সফল হওয়া যায় তার উদাহরণ স্বাস্থ্য বিভাগ। তিনি বলেন, একইভাবে এলাকার উন্নয়ন কাজে সকলের সদিচ্ছা ও সহযোগিতা থাকলে সকল বিভাগের কর্মসূচি সফলভাবে বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে। পরিষদ এবং হস্তান্তরিত বিভাগের মধ্যে বিভিন্ন বিষয়ে প্রশাসনিক সংক্রান্ত যেসমস্ত সমস্যা আছে তা সমঝোতার মাধ্যমে কাটিয়ে উঠে সরকারের প্রত্যাশিত উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে এগিয়ে আসার আহবান জানান তিনি।
পরিষদের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আশরাফুল ইসলাম এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্যবৃন্দ যথাক্রমে সদস্য ঝর্ণা খীসা, সদস্য দিপ্তীময় তালুকদার, সদস্য অংসুই ছাইন চৌধুরী, সদস্য সবির কুমার চাকমা, সদস্য রেমলিয়ানা পাংখোয়া, সদস্য নিউচিং মারমা, সদস্য ইলিপন চাকমা, সদস্য প্রিয় নন্দ চাকমা, সদস্য বিপুল ত্রিপুরা, সদস্য মোঃ আব্দুর রহিম, সদস্য মোসাম্মৎ আছমা বেগম, সদস্য প্রবর্তক চাকমা, সিভিল সার্জন ডাঃ বিপাশ খীসা, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ সাজ্জাদ হোসেন, জনস্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী অনুপম দে, স্বাস্থ্য প্রকৌশলের সহকারী প্রকৌশলী মোঃ অলিউর রহমান, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা শ্রীবাস চন্দ্র চন্দ, সমাজসেবা বিভাগের উপপরিচালক মোহাম্মদ ওমর ফারুক, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোঃ শাহজাহান, জেলা সমবায় উপসহকারি নিবন্ধক কেফায়েত উল্লাহ খান, জেলা তুলা উন্নয়ন কর্মকর্তা পরেশ চন্দ্র চাকমা, পর্যটন হলিডে কমপ্লেক্সের ব্যবস্থাপক সৃজন বিকাশ বড়ুয়া, হাস প্রজনন খামারের উপসহকারী প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা মোঃ আবু তাহের, ক্ষুদ্র নৃগোষ্টির সাংস্কৃতিক ইনষ্টিটিউট এর কালচারাল অফিসার শোভিত চাকমা, জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা: বরুন কুমার দত্ত, সরকারী মুরগী প্রজনন ও উন্নয়ন খামার এর ব্যবস্থাপক ডাঃ পলি রাণী ঘোষ, সহকারী ব্যবস্থাপক বিসিক এজিএম মোঃ ইসমাইল হোসেন, পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের সহকারি পরিচালক ডা: বেবী ত্রিপুরা, সহকারি পরিচালক বিএডিসি মোঃ লুৎফর রহমান, আরপিটিআই ট্রেইনার লিপি চাকমা, জেলা শিক্ষা অফিসের সহকারি পরিচালক অনুতোষ চাকমা, সহকারী পরিচালক সরকারী গণগ্রন্থাগার সুনীলময় চাকমা, সিনিয়র সহকারী পরিচালক শুকর উন্নয়ন খামার কুসুম চাকমা, উপপরিচালক জেলা কৃত্রিম প্রজনন কেন্দ্র ডা: তুষার কান্তি চাকমা, ভেটেরিনারী অফিসার জেলা ভেটেনারী হাসপাতাল ডা: মো: নাজমুল হক, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক তপন কুমার পাল, পরিষদের নির্বাহী প্রকৌশলী বিরল বড়ুয়া, জনসংযোগ কর্মকর্তা অরুনেন্দু ত্রিপুরা, সহকারি প্রকৌশলী উজ্জল কান্তি দেওয়ান ও প্রশাসনিক কর্মকর্তা মনতোষ চাকমা উপস্থিত ছিলেন।
হস্তান্তরিত বিভাগের কর্মকর্তাগণ স্ব-স্ব প্রতিষ্ঠানের কাজের অগ্রগতি তুলে ধরেন।