আওয়ামীলীগের প্রার্থীকে সমর্থন জানিয়ে দুই বিদ্রোহী প্রার্থীর প্রার্থীতা প্রত্যাহার

147

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাঙ্গামাটিঃ-বিদ্রোহী প্রার্থীকে সমর্থন দেওয়ায় দল থেকে সদ্য অব্যাহতি পাওয়া লংগদু উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল বারেক সরকার ও রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আবদুর রহিমের অব্যাহতি প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে লংগদুতে ২জন আওয়ামীলীগ (বিদ্রোহী) প্রার্থী নৌকাকে সমর্থন জানিয়ে তাদের প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নিয়েছে।
লংগদু উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল বারেক সরকার বলেন, মাইনী ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করা আমার ছেলে মো. এরশাদকে দলীয় সিদ্ধান্তের প্রতি সন্মান জানিয়ে এবং দলীয় প্রার্থীকে বিজয়ী করতে চেয়ারম্যান পদের নির্বাচন থেকে সরিয়ে নিয়েছি। এখন থেকে দলীয় প্রার্থীকে বিজয়ী করতে আমরা মাঠে কাজ করে যাবো।
লংগদু উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এবং পার্বত্য রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদের সদস্য আব্দুর রহিম বলেন, দলীয় সিদ্ধান্তের প্রতি আস্থা রেখে গুলশাখালী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন থেকে আমার ভাইয়ের ছেলে রকিব হোসেনকে সরিয়ে নিয়েছি। দলীয় প্রার্থীকে বিজয়ী করতে আমরা সর্বাত্বক কাজ করে যাবো।
বৃহস্পতিবার (ফেব্রুয়ারি)সকাল ১১টায় লংগদু উপজেলার জেলা পরিষদ বিশ্রামাগার মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন, গোলশাখালী ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান বিদ্রোহী প্রার্থী মোঃ রাকিব ও মাইনীমূখ ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী এরশাদ সরকার।
সংবাদ সম্মেলনে সদ্য অব্যাহতি দেওয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আবদুল বারেক সরকার ও সহ-সভাপতি আবদুর রহিম অভিযোগ করে বলেন, লংগদুতে ইউপি নির্বাচনে কোন ইউনিয়নে কাকে প্রার্থী দেওয়া হবে এব্যাপারে জেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ আমাদের সাথে কোন পরামর্শ না করেই প্রার্থী বাছাই করার কারনে আজ এসব সমস্যা দৃষ্টি হয়েছে।
তারা বলেন, লংগদুতে যে ৬জন বিদ্রোহী প্রার্থী নির্বাচনে অংশ নিয়েছে তারাও আমাদের সাথে কোন রকম পরামর্শ করেনি। তবে কোন কারন ছাড়াই মাঝে দিয়ে আমাকে জেলা আওয়ামী লীগ দলের পদ পদবী থেকে অব্যাহতি দিয়েছে। আমি আবদুল বারেক সরকার ও আবদুর রহিম জন্ম সূত্রে আওয়ামী লীগ। আমাদেরকে হাজার বার বহিস্কার করলেও আমরা আওয়ামী লীগ থেকে যাব। আওয়ামী লীগে আছি আগামী দিনেও আওয়ামী লীগে থাকব।
তবে দলের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এবং পাহাড়ের বড় পুত্র জননেতা দীপংকর তালুকদারের হাতকে শক্তিশালী করতে আগামী ৭ ফেব্রুয়ারির নির্বাচনে সবাইকে নৌকা মার্কায় ভোট দেওয়ার আহবান জানিয়ে মাঠে ময়দানে ঝাপিয়ে পড়ার আহবান জানান এই প্রভাবশালী দুই নেতা। তবে উপজেলা পর্যায়ে আওয়ামী লীগের এই ২শীর্ষ নেতা বলেন, লংগদুতে আওয়ামী লীগে নষ্ট করছে কান কথায় ও হাইব্রীড আওয়ামী লীগে। জেলায় যদি এসব না শুনে তাহলে এখানে কোন সমস্যা থাকবে না।
লংগদু জেলা পরিষদ রেষ্ট হাউজে এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দিয়েছেন মাইনীমুখ ইউপিতে বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ এরশাদ সরকার ও গুলশাখালী ইউনিয়ন পরিষদ বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ রকিব হোসেন বলেন, তাদের অভিভাবক লংগদু উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল বারেক সরকার ও জেলা পরিষদ সদস্য মোঃ আব্দুর রহিমের প্রত্যাহার আদেশ বাতিল করার আহবান জানান।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, লংগদু উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল বারেক সরকার, জেলা পরিষদ সদস্য মোঃ আব্দুর রহিম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মোশাররফ হোসেন, জেলা যুবলীগের সদস্য শাহ মোঃ নজরুল ইসলামসহ অসংখ্য নেতাকর্মী।