বান্দরবানে জেন্ডার ভিত্তিক সহিংসতা প্রতিরোধে সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সেবাদানকারী সংস্থার সাথে সংলাপ

81

রাহুল বড়ুয়া ছোটন, বান্দরবানঃ-বান্দরবানে জেন্ডার ও জেন্ডার ভিত্তিক সহিংসতা প্রতিরোধে সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সরকারী সেবা সমূহে অভিগম্যতা বৃদ্ধির জন্য প্রথাগত নেতৃবৃন্দ এবং সরকারী সেবাদানকারী সংস্থার সাথে সংলাপ আয়োজন করেছে ইকো-ডেভেলপমেন্ট।
২৫ সেপ্টেম্বর (শনিবার) সকালে ইকো-ডেভেলপমেন্ট কার্যালয়ের সভাকক্ষে নারী নির্যাতন প্রতিরোধে ইউনিয়ন পরিষদ, প্রথাগত নেতা এবং সরকারী সেবাদানকারী সেবা প্রতিষ্ঠানের ভুমিকা নিয়ে এই সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়।
এসময় সংলাপে উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো: অমর ফারুক, উপজেলা প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা আলোক কুমার চক্রবর্তী, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের সহকারী সার্জন ডা: তাফরিন ফারহানা আহম্মেদ, সদর উপজেলার যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা নু প্রু চিং, উপজেলা স্বাস্থ্যা ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা, হেডম্যান এসোসিয়েশানের সাধারণ সম্পাদক টিমংপ্রু, উইমেন নেটওয়ার্ক এসোসিয়েশনের সভাপতি এডভোকেট. উইমে সিং, মহিলা ও শিশু বিষয়ক অধিদপ্তরের প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা কাজল দাশ, ইকো-ডেভেলপমেন্টে নির্বাহী পরিচালক মংহ্নৈচিং, কর্মসুচী পরিচালক উক্যসিং, প্রকল্প ব্যবস্থাপক উত্তম কুমার চৌধূরী, এফ এফ উহ্লা সিং, মেসিংনু, পিয়া চাকমা, তুফান বর্ম প্রমুখ।
সংলাপের রেইচা থলিপাড়ার নুচিং মার্মা বলেন, কৃষির ক্ষেত্রে আমরা সহযোগীতা পেয়ে থাকি। কিন্তু প্রানী সম্পদ থেকেও আমরা কিছু কিছু সেবা পাই, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর এবং মহিলা ও শিশু অধিদপ্তর থেকে কি কি সেবা আমরা পাব সেই সম্পর্কে আমরা তেমন ধারণা নেই। সেই সম্পর্কে আমি উপস্থিত সরকারী সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের কাছে সহযোগীতা প্রার্থনা করছি।
রাজবিলার কার্বারী অংথোয়াই প্রু মার্মা বলেন, আমাদের সমাজে মদ পান করে পারিবারিক, সামাজিক ভাবে বিশৃংঙ্খলা সৃষ্টি করে। এই জন্য প্রথাগত আইগুলো পরিবর্তন করা দরকার। সামাজকে শৃঙ্খলায় আনতে হলে এইটা এখন সময়ের দাবী। সমাজে কার্বারিদের কোন দাম নাই। কারণ আমরা আমাদের সমাজের লোকদের কোন ভাতা দিতে পারিনা। আমাদের এখানে দাম আছে মেম্বার এবং চেয়ারম্যানদের, কারণ তারা এলাকার লোকদের ভাতাসহ অন্যান্য সুবিধা দিতে পারে। তাদেরকে সাথে নিয়ে আমরা আমাদের সমাজকে পরিবর্তন করতে হবে।
বলফুল সমিতির যতœা তঞ্চঙ্গ্যা বলেন, আমরা নারীরা আদিকাল হতে নির্যাতিতা। সঠিক দিক নির্দেশনার অভাবে আমরা সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারি না। আমাদের অনেক প্রশিক্ষণ দরকার। প্রশিক্ষনের মাধ্যমে দক্ষতা অর্জন করে পরিবারে ভুমিকা রাখতে পারব। আমি ইকো-ডেভেলপমেন্ট, বান্দরবানকে ধন্যবাদ জানাই তারা আমাদের দল ব্যবস্থাপনা, কৃষি এবং প্রানি সম্পদ, নেতৃত্ব বিষয়ক, সরকারী সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন সেবা সম্পর্কে অবহিত করেছেন।
সংলাপে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা, প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের সহকারী সার্জন ডা: তাফরিন ফারহানা আহম্মেদ, মহিলা ও শিশু অধিদপ্তরের কর্মকর্তা কি কি সেবা এই প্রতিষ্টান হতে পাওয়া যায় সেই সম্পর্কে অবহিত করেন।