উদ্বোধন হতে যাচ্ছে থানচি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ৩১ শয্যা থেকে ৫০ শয্যায় উন্নিত ও বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ভবন

33

থানচি প্রতিনিধিঃ-বান্দরবানে থানচি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি ৩১ শয্যা বিশিষ্ট থেকে ৫০ শয্যা বিশিষ্ট করতে এলাকাবাসীদের দীর্ঘদিনের দাবী ছিলো। আর স্বাস্থ্য সেবায় জনবল, প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি, কক্ষ, আসবাব পত্র, চিকিৎসকের অভাবে চিকিৎসা সেবার কার্যক্রম ছিলো অপ্রতুল। এতে করে মানুষের স্বাস্থ্যসেবা দৌড়গোড়াই পৌঁছে দিতে হিমশীম খেতে হতো স্বাস্থ্য বিভাগের সংশ্লিষ্টরা।
কিন্তু থানচি এলাকাবাসীর দাবীর পরিপ্রেক্ষিতে ৩১ শয্যা থেকে ৫০ শয্যাতে উন্নিত করে ভবন সম্প্রসারনসহ প্রয়োজনীয় সকল যন্ত্রপাতি, আসবাব পত্র, জনবলের সমস্যা দূর করে শুভ উদ্বোধন হতে যাচ্ছে। আর এর সাথে সাথে থানচি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নব নির্মিত ভবনও উদ্বোধন করা হবে।
আর এরই ধারাবাহিকতায় আগামি বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) সকালে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী কমপ্লেক্সটি নতুন ভবন শুভ উদ্বোধন করে উদ্মুক্ত ঘোষনা করবেন। উদ্বোধনের পর থেকে এক্সরেসহ সকল পরীক্ষাগাড় কর্মকর্তা-কর্মচারীরা স্বাস্থ্য খাতকে সরকারী সেবা বৃদ্ধি ও মান উন্নয়নের সংশ্লিষ্টরা নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন বলে মনে করছে এলাকাবাসী।
আর একই দিনেই দীর্ঘদিনে প্রত্যাশা থানচি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন নির্মিত দোতলা ভবন, ভূমি, গৃহহীনদের প্রধানমন্ত্রী উপহার নব নির্মিত ঘর গৃহহীনদের হস্তান্তর করা হবে। এছাড়াও চলমান ভিজিডি, ভিজিএফ, কৃষকদের ফলজ বৃক্ষ চারা, কৃষি উপকরন বিতরন, অসহায় রোগীদের প্রয়োজনীয় ঔষধসহ চিকিৎসা ব্যবস্থা (বিশেষ চিকিৎসক টিম)সহ তিনটি মেগা প্রকল্পের শুভ উদ্বোধন করবেন পার্বত্য মন্ত্রী।
এছাড়াও থানচি সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে স্বাস্থ্য বিধি অনুস্বরন করে স্বল্প পরিসরে মতবিনিময় করবেন বলে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রীর ব্যক্তিগত একান্ত সচিব সাদেক হোসেন চৌধুরী স্বাক্ষরিত চিঠি ইতি মধ্যে থানচি উপজেলা প্রশাসনে হাতে পৌছেছে।
সংশ্লিষ্ঠ সূত্রে জানা যায়, স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরে অর্থায়নের প্রায় ১৪ কোটি ৪৯ লক্ষ টাকা ব্যয়ের ২০১৯-২১ অর্থসালে নির্মান বাস্তবায়ন করেন। এর আগেই ২০১৮ সালে ২৫ ফেব্রুয়ারী ভিক্তি প্রস্তর উদ্বোধনের মাধ্যমে নির্মাণ কাজ শুরু হয়। থানচি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর ৩১ শয্যা থেকে ৫০ শয্যা উন্নিতকরণ, চার তলা বিশিষ্ট ডরমেটরী ও মূল হাসপাতাল ভবনটি নির্মান করা হয়। দীর্ঘ সাড়ে তিন বছরে শতভাগ বাস্তবায়ন করেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। এদিকে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড অর্থায়নের ২০১৮-২০ অর্থসালে প্রায় এক কোটি টাকা ব্যয়ের থানচি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য দোতলা ভবন নির্মান বাস্তবায়ন করা হয়।
ঠিকাদার বান্দরবান সদরে নিবাসী মোজ্জাফর আহম্মদ বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রীর ও সরকারে বেঁধে দেয়ার মেয়াদে বাস্তবায়ন কাজ সঠিক মেয়াদের সমাপ্তি করতে পেরেছি। নির্মানে সময় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী, জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক ভাইয়েরা অনেক সহযোগীতা করেছে এ জন্য সকল সহযোগীতা মহলকে কৃতজ্ঞতা জানাই।
যোগাযোগ করা হলে স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরে কক্সবাজার জেলা নির্বাহী প্রকৌশলী মো: দেলোওয়ার হোসেন বলেন, প্রত্যন্ত অঞ্চলে স্বাস্থ্য সেবা দৌড়গোড়ায় পৌছিয়ে দিতে সরকারের নির্দেশনা রয়েছে। সুতারাং অত্র অধিদপ্তর থানচির মতো উপজেলাসহ দেশের সকল জেলা উপজেলা ইউনিয়ন পর্যায়ে বাস্তবায়নের কাজ করে যাচ্ছি।
পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড বান্দরবান জেলা নির্বাহী প্রকৌশলী আবু বিন মোহাম্মদ ইয়াছির আরফাত বলেন, পার্বত্য বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের মাননীয় মন্ত্রী মহোদয় পার্বত্য অঞ্চলে প্রত্যন্ত এলাকায় দরিদ্র ছেলে মেয়েদের সু-শিক্ষিত করার লক্ষ্যে শিক্ষার মান বৃদ্ধি করার জন্য থানচিতে মনোরম পরিবেশে বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ভবন নির্মান করে দিয়েছে। সামনে ছাত্রী নিবাসসহ প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা গ্রহন করবেন বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।