আজ রাঙ্গামাটির লংগদুর ৩৫ কাঠুরিয়া হত্যাকান্ড দিবস, দীর্ঘ বছরে ও হয়নি নির্মম এ হত্যাকান্ডের বিচার

369

নিজস্ব প্রতিবেদক,রাঙ্গামাটি – আজ ৯ সেপ্টেম্বর রাঙ্গামাটির লংগদুর ৩৫ কাঠুরিয়া হত্যাকান্ড দিবস । ১৯৯৬ সালের এই দিনে রাঙ্গামাটির লংগদু উপজেলার পাকুয়াখালীর গহীন বনে ৩৫ নিরীহ বাঙালী কাঠুরিয়াকে হত্যা করা হয়। নির্মমভাবে এ হত্যাকান্ড ঘটিয়ে কাঠুরিয়াদের লাশ ফেলে দেয়া হয় পাহাড়ি খাদে । এর মধ্যে ২৮ জনের লাশ পাওয়া গিয়েছিল। বাকি ৭ জন কাঠুরিয়ার লাশ পাওয়া যায়নি। এ ঘটনার জন্য বাঙ্গালীরা তৎকালীন শান্তিবাহিনীকে দায়ী করা হয়।

৩৫ কাঠুরিয়াদের শান্তিবাহিনী কাজ দেওয়াার কথা বলে ও আলোচনার প্রস্তাব দিয়ে কাঠুরিয়াদের বনে ডেকে নিয়ে গিয়ে এ হত্যাযজ্ঞ চালায়। সে দিন তারা কাঠুরিয়াদের নির্মম নির্যাতন চালিয়ে হত্যা করে এবং পাহাড়ি খাদে ফেলে দেয়। সেই থেকে পার্বত্য এলাকায় বাঙ্গালীরা প্রতি বছর এ দিনটিকে পাকুয়াখালী ট্রাজেডি দিবস হিসেবে পালন করে আসছে।

এটি পার্বত্য চট্টগ্রামের বহু গণহত্যার মধ্যে অন্যতম ঘটনা। এ হত্যা কান্ডের ১৮ বছর পার হলেও এ হত্যাকান্ডের বিচার হয়নি। দীর্ঘ দিনেও বিচার না পেয়ে এখনো হতাশায় দিন কাটাচ্ছে নিহতদের পরিবার।

৯ সেপ্টেম্বর ৩৫ কাঠুরিয়া হত্যাকান্ড দিবসকে ঘিরে রাঙ্গামাটি জেলা ও উপজেলায় বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করা হবে জানিয়েছে পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের রাঙ্গামাটি জেলা সভাপতি মোঃ সাব্বির আহমদ।

এর মধ্যে রয়েছে ৯ সেপ্টেম্বর লংগদু উপজেলায় সংগঠনটির উদ্যোগে স্থানীয়দের নিয়ে শহীদদের গণকবর জিয়ারত, দোয়া মাহফিল ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে।

এছাড়া দিবসটি উপলক্ষে আজ বুধবার রাঙ্গামাটি কাঠ ব্যবসায়ী কনফারেন্স হলে প্রতিবাদ সমাবেশ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে এবং লংগদু উপজেলায় সংগঠনটির উদ্যোগে কবর জেয়ারত,দোয়া মাহফিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, ১৯৯৬ সালের ৭ সেপ্টেম্বর শান্তি বাহিনী লংগদুর ৩৬ জন কাঠুরিয়াকে আলোচনার কথা বলে পাকুয়াখালী নামক গহীন বনে ডেকে নিয়ে যায়।

সেখানে তিন দিন কাঠুরিয়াদের হাত-পা ও চোখ বেঁধে নির্যাতন চালিয়ে মধ্যযুগীয় বর্বরতায় হত্যা করে সকলের লাশ গহীন বনের পাহাড়ী খাদে ফেলে দেয়া হয়।

এর মধ্যে ইউনুচ নামের একজন কাঠুরিয়া সে দিন পালিয়ে আসতে সক্ষম হয়। তার মাধ্যমে সবাই জানতে পারে এ হত্যা যজ্ঞের খবর।

পরের দিন ৯ সেপ্টেম্বর পুলিশ ও সেনাবাহিনী পাকুয়াখালীর বন হতে ২৮ জন কাঠুরিয়ার ক্ষত বিক্ষত লাশ উদ্ধার করে। বাকি ৭ জন কাঠুরিয়ার লাশ পাওয়া যায়নি। এ হত্যা মামলার আজো কোন কুল কিনারা হয়নি ।
#