পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনের সাথে নাগরিক পরিষদের বৈঠক

224

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ-”পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনের আইন ২০০১ এবং সংশোধনী আইন ২০১৬” তে যে সব ধারা সংবিধানের সাথে সাংঘার্র্ষিক,যে ধারাসমূহ বাতিল করার জন্য আন্দোলন করে আসছেন তা তুলে ধরে তা সংশোধন না করে পরবর্তী কার্যক্রম না চালানোর জন্য অনুরোধ করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার আলকাছ আল মামুন ভূঁইয়া।
পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক মোঃ আলম খাঁন কর্তৃক প্রেরিত এক ইমেইল বার্তায় জানানো হয়।
সোমবার ২৪ ফেব্রুয়ারি) সাড়ে ১১টার দিকে পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনের এর চেয়ারম্যানের সাথে পূর্ব নির্ধারিত বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার আলকাছ আল মামুন ভূঁইয়ার নেতৃত্বে উক্ত বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি মনিরুজ্জামান মনির, সহ সভাপতি শেখ আহম্মেদ রাজু, সহ সভাপতি মোঃ আব্দুল হামিদ রানা এবং সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এড.মোঃ আলম খান, পার্বত্য ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনের চেয়্যারম্যান (অবঃ) বিচারপতি আনোয়ারুল হকের সাথে সবাইকে পরিচয় করিয়ে দেন, এডভোকেট মোঃ আলম খান।
সংবিধানের সাথে সাংঘর্ষিক ধারা সমূহ বাতিল না করে আর কোন কার্যক্রম না করার অনুরোধ করেন এবং পার্বত্য ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনের কাঠামোতে পার্বত্য চট্টগ্রামের নাগরিকদের জনসংখ্যা অনুপাতে সদস্য নিয়োগ করার অনুরোধ করা হয়। কমিশনের জন্য করা এ আইনে প্রথা, রীতি পদ্ধতি কোন সংবিধানের ভাষা নয়। এগুলোর ভিত্তিতে দেয়া রায়ে এবং দেওয়ানী আদালতের আদেশ ও ডিক্রী বলে গন্য হবে। কমিশনের আদেশ মান্য না করার জন্য শাস্তির ব্যবস্থা ও চেয়ারম্যানের ক্ষমতা তা সংশোধন করার জন্য পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার আলকাছ আল মামুন ভূঁইয়া পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনের চেয়্যারম্যান (অবঃ) বিচারপতি আনোয়ারুল হককে অনুরোধ করেন, তার জবাবে চেয়ারম্যান বলেন, আপনাদের দেওয়া স্মারকলিপি এবং দাবী সমুহ সরকারের নিকট পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। আপনারা সরকারের সাথে কথা বলতে পারেন। পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ প্রায় ২ ঘন্টা ৩০ মিনিট কমিশনের চেয়্যারম্যানের সাথে আলোচনা করেন।
আলোচনা ফলপ্রসু হয়, পার্বত্য ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনের চেয়ারম্যান এর সাথে পরে এই সব বিষয় নিয়ে আবারও আলোচনা হবে। ভূমি বিরোধ নিয়ে আমাদের কাছে যে সব তথ্য উপাত্ত আছে তা নিয়ে পরে কমিশনের চেয়ারম্যানের সাথে আলোচনা করার অনুরোধ করা হলে তিনি বলেন, ”আপনারা অবশ্য আসবেন আমি আপনাদের সাথে পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিকদের বিরোধ (ভূমি) নিয়ে আলোচনায় ও সমাধান করার জন্য সরকার আমাকে নিয়োগ দিয়েছেন”। পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার আলকাছ আল মামুন ভূঁইয়া কমিশনের চেয়্যারম্যান (অবঃ) বিচারপতি আনোয়ারুল হককে ধন্যবাদ দিয়ে এবং আগামী মাসের নির্ধারিত পরবর্তী বৈঠকটি না করার অনুরোধ করে আলোচনা শেষ।