সাংবাদিক নির্যাতন বন্ধ হোক …

340

সাংবাদিক মানে জাতির কন্ঠস্বর। কৃষক যেমন রোদে পুড়ে বৃষ্টিতে ভিজে ফসল উৎপাদন করে, ঠিক তেমনি নিজেরা তাদের জীবনের ঝুঁকি থাকা সত্ত্বেও সমাজের অপরাধীদের মুখোশ উন্মোচন করে দেশ ও জাতির কাছে। শুধু তাই নয় তারা নিজেদের পরিশ্রমে চেষ্টা করে সমাজের অপরাধ অনিয়ম তুলে ধরতে। ফলে সমাজ অনেকটাই উন্নত হয় মানুষ তাদের নিজেদের অধিকার ফিরে পায় বা অধিকার আদায়ে সোচ্চার হন। কিন্তু তাতে কি পান সাংবাদিকেরা। শুধু জনতার সাধুবাদ ও নিজের সামান্য স্বস্তি। দেশে প্রতিনিয়ত সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনা বেড়ে চলছে। এতে করে সাংবাদিকদের কর্মক্ষেত্র ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। আগেও অনেক সাংবাদিক হত্যা ও নির্যাতনের ঘটনার সুষ্ঠু বিচার না হওয়ায় এ ধরণের সহিংস ঘটনার পুনরাবৃত্তি হচ্ছে।

ঝুঁকির মুখে সাংবাদিকতা
বিচারহীনতায় কমেনি সাংবাদিক নির্যাতন,
বিভিন্নভাবে সাংবাদিক নির্যাতন,
সাংবাদিকের পরিবার অর্থ সংকটে,
বিশ্বে ৯০ শতাংশ সাংবাদিক হত্যার কোনো বিচার হয়নি,
মুক্ত সাংবাদিকতার ঝুঁকি বাড়ছে,

সাংবাদিকরা সমাজের দর্পন। জাতির বিবেক। প্রতিদিন সংবাদ পিপাসু মানুষের দ্বারে নতুন নতুন খবর নিয়ে হাজির হয় সাংবাদিকরা। তাদের লেখনি বা সংবাদ উপস্থাপনের মাধ্যমে সকালে চায়ের কাপে ঝড় থেকে শুরু করে মানুষ সুফল পেতে শুরু করে। নির্যাতিত মানুষ শেষ আশ্রস্থাল হিসাবে সাংবাদিকদের দারস্থ হয়। আর সাংবাদিকরা জাতির সামনে তুলে ধরে সুবিধা বঞ্চিত মানুষের সুখ,দুঃখ,হাসি কন্না,সাফল্য ব্যার্থতার কথা। কিন্তু সেই সাংবাদিক যখন নির্যাতিত হয় তখন সাধারণ মানুষ কোথায় যাবে?